ঢাকাশুক্রবার , ৪ মার্চ ২০২২
  1. অর্থনীতি
  2. আন্তর্জাতিক
  3. কৃষি-কৃষক
  4. খেলার খবর
  5. চাকরী
  6. চিকিৎসা-করোনা
  7. জাতীয়
  8. দেশ-জুড়ে
  9. ধর্ম-কর্ম
  10. প্রযুক্তি খবর
  11. বিনোদন
  12. বিস্ময়কর
  13. রাজনীতি
  14. লাইফস্টাইল
  15. শিক্ষা

ধূলায় আচ্ছন্ন হিলি চরম বিপাকে হিলিবাসী

গোলাম রব্বানী হিলি প্রতিনিধি
মার্চ ৪, ২০২২ ১:২১ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

বর্ষায় কাঁদা পানি আর খরায় ধূলো বালি এর নাম বাংলা হিলি। দেশের উত্তরের জেলা দিনাজপুরের সর্ব দক্ষিণে অবস্থিত হাকিমপুর (হিলি) উপজেলা। সীমান্ত ঘেঁষা এই উপজেলাটি তিনটি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত। হিলি বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম স্থলবন্দর।সেখান থেকে সরকার কোটি কোটি টাকা রাজস্ব পেয়ে থাকলেও নানা উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড থেকে পিছিয়ে রয়েছে এখানকার সাধারণ জনগণ। বিশেষ করে রাস্তাঘাট অন্যতম।

বৃহস্পতিবার (৩ মার্চ) সরেজমিনে স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, রোদে ধুলা, বৃষ্টিতে কাদা। এই ধুলা আর কাদায় নাকাল দিনাজপুরের হাকিমপুর (হিলি) পৌরসভার বাসিন্দারা। পর্যাপ্ত নর্দমা (ড্রেনেজ) ব্যবস্হা না থাকায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করছেন সচেতন এলাকাবাসী।

স্থানীয় কয়েকজন রিকশাচালক জানান, একদিকে রাস্তার অবস্থা খুব খারাপ, অপরদিকে ধুলার জন্য লোকজন রিকশায় উঠতে চায় না। এতে তারা রিকশা চালিয়ে ঠিকমতো উপার্জন করতে পারেন না। তাই পরিবার-পরিজন নিয়ে তাদের অনেক সময় কষ্টে দিনাতিপাত করতে হয়। যদি হাকিমপুর পৌরসভা অথবা উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে রাস্তাগুলোতে প্রতিদিন পানির ব্যবস্থা করা হতো তবে কিছুটা ধুলা থেকে রক্ষা পাওয়া যেতো।

হাকিমপুর (হিলি) স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, সামান্য বৃষ্টিতেই শহরে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এতে রাস্তাঘাট ডুবে যায়। পানি সরে গেলে শহরের মূল সড়ক ও অভ্যন্তরীণ রাস্তায় প্রচুর কাদা জমে। দিনাজপুর, জয়পুরহাট, গাইবান্ধা ও ঢাকার সঙ্গে হিলির ত্রিমুখী সড়ক যোগাযোগ রয়েছে। হিলি স্থলবন্দর দিয়ে প্রতিদিন ৩০০ থেকে ৪০০ পণ্যবাহী ট্রাক ও শতাধিক যাত্রীবাহী বাসসহ হাজারো যানবাহন চলাচল করে। ফলে শুকনা মৌসুমে দিন-রাত ধুলায় আচ্ছন্ন থাকে পুরো শহর।

হাকিমপুর উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জান গেছে, ধুলার কারণে তারা স্বাভাবিকভাবে চলাফেরা বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যেতে পারছে না। তাদের স্বাভাবিক জীবন ব্যাহত হচ্ছে। ধুলার জন্য অনেক শিক্ষার্থী কাশিসহ ধুলাবাহিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।

হাকিমপুর (হিলি) পৌরসভার মেয়র জামিল হোসেন চলন্ত জানান, ধুলার কারণে জনগণের অসুবিধা হচ্ছে। ইতিমধ্যে স্থানীয় মন্ত্রণালয়ে একটি গাড়ির জন্য আবেদন করা হয়েছে। গাড়িটি পাওয়া গেলে রাস্তায় নিয়মিত পানি ছিটিয়ে ধুলা নির্মূল করা হবে।

হাকিমপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা শ্যামল কুমার দাস জানান, ধুলা একটি মারাত্মক জীবাণু। নাক দিয়ে ধুলা মানব দেহে প্রবেশ করে ফুসফুসের নানা সমস্যার সৃষ্টি করে থাকে। সেজন্য ধুলা থেকে মুক্ত থাকার জন্য সবার মাস্ক ব্যবহার করা জরুরি।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।