ঢাকাশনিবার , ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২২
  1. অর্থনীতি
  2. আন্তর্জাতিক
  3. কৃষি-কৃষক
  4. খেলার খবর
  5. চাকরী
  6. চিকিৎসা-করোনা
  7. জাতীয়
  8. দেশ-জুড়ে
  9. ধর্ম-কর্ম
  10. প্রযুক্তি খবর
  11. বিনোদন
  12. বিস্ময়কর
  13. রাজনীতি
  14. লাইফস্টাইল
  15. শিক্ষা

হিলিতে পেঁয়াজ ও কাঁচামরিচের দাম বেড়েছে দ্বিগুণ

গোলাম রব্বানী হিলি প্রতিনিধি
ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২২ ৯:৩৪ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

শীতের মৌসুম শেষ হওয়ার আগেই হঠাৎ করে দিনাজপুরের হাকিমপুর হিলি বাজারে দেশীয় পেঁয়াজ ও কাঁচামরিচের দাম বেড়েছে প্রায় দ্বিগুণ। দুই থেকে তিন দিনের ব্যবধানে পেঁয়াজ ও কাঁচামরিচের দাম বেড়েছে দ্বিগুণ। কাঁচামরিচ কেজি প্রতি দাম বেড়েছে ২০ টাকা। আর প্রতি কেজি পেঁয়াজ এর দাম বেড়েছে ১৮ থেকে ২০ টাকা। হঠাৎ করে নিত্যপ্রয়োজনীয় এ দুই পণ্যের দাম বাড়ায় বিপাকে পড়েছেন নিন্ম আয়ের খেটে খাওয়া মানুষসহ সাধারণ ক্রেতারা। সরবরাহ কমের অজুহাতে দাম বেড়েছে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। তবে বাজারে আলুর দাম নাগালের মধ্যে রয়েছে।

শনিবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) সরেজমিন হিলি কাঁচা বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বাজারে সব দোকানেই পেঁয়াজ ও কাঁচামরিচের সরবরাহ আগের তুলনায় কম রয়েছে। তাই দামও আগের তুলনায় বেশি। দুই থেকে তিন দিন আগে বাজারে কাঁচামরিচ পাইকারিতে ২৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে যা খুচরা বাজারে বিক্রি হয়েছে ৩০ টাকা কেজি দরে। আজ পাইকারি বাজারে কাঁচামরিচ ৪৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে যা খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে প্রতি ৫০ টাকা। অন্যদিকে দেশীয় পেঁয়াজ দুই থেকে তিন দিন আগে বাজারে প্রতি কেজি পাইকারিতে ২২ থেকে ২৪ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। যা খুচরা বাজারে ২৬ থেকে ২৮ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। আজ সেই পেঁয়াজ প্রতি কেজি দাম বেড়ে পাইকারিতে বিক্রি হচ্ছে ৪২ থেকে ৪৫ টাকা। যা খুচরা বাজারে প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪৮ থেকে ৫০ টাকা দরে। এছাড়াও বাজারে শীতকালীন সবজি, চাল, ডাল, সয়াবিন তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় সব জিনিসের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে বলে অভিযোগ ক্রেতাদের।

হিলি কাঁচাবাজারে আসা ক্রেতা শাহরিয়ার আলমাস বলেন, বাজারে আগুন পড়েছে, সব পণ্যর দাম বেড়েছে। চাল, ডাল, তেলসহ সব ধরনের নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বেশি। বাজারে হঠাৎ করে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যর দাম এভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় হিসাব মিলাতে পারছি না। এত বাড়তি দামে এসব পণ্য ক্রয় করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। দুই তিন দিন আগে দেশীয় পেঁয়াজ খুচরা বাজারে ২৬ থেকে ২৮ টাকা কেজি দরে কিনেছি আজ সেই পেঁয়াজ খুচরা বাজারে ৪৮ থেকে ৫০ টাকা কিনতে হচ্ছে। তবে নিয়মিত কাঁচাবাজার মনিটরিং হচ্ছে না বলে এমন দাম বাড়াচ্ছে ব্যবসায়ীরা বলে আমি মনে করছি।

কাঁচাবাজারে আসা গৃহবধূ শাহনাজ পারভীন বলেন, বাজারে শীতকালীন সবজির দাম ও বেশি। শুধু মাত্র আলুর দাম নাগালের মধ্যে রয়েছে। বাজারে প্রতি কেজি আলু বিক্রি হচ্ছে ৮ থেকে ১০ টাকা দরে। কাঁচামরিচ কদিন আগে ৩০ কেজি কিনলাম আজ আবার ৫০ কেজি বিক্রি হচ্ছে। হঠাৎ করে মরিচের দাম কেজিতে ২০টাকা করে বেড়ে গেছে। এত বাড়তি দামে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কেনা আমাদের জন্য অসম্ভব হয়ে উঠেছে। বাধ্য হয়ে আগে যেখানে এক কেজি নিতাম সেখানে হাফ কেজি নিতে হচ্ছে কি আর করা।

হিলি কাঁচাবাজার এর ব্যবসায়ী সোহেল রানা বলেন, কাঁচাবাজারে পণ্যর দাম নির্দিষ্ট করে কিছু বলা যায় না। যখন বাজারে কাঁচামালের সরবরাহ (আমদানি) বাড়ে তখন অটোমেটিক দাম কমে আসে। আর তখন আমাদের বেচাকেনাও বেড়ে যায়। আর যখন সরবরাহ কমে যায় তখনই কাঁচামালের দাম হু হু করে বৃদ্ধি পায়। তখন ক্রেতার সাথে বেশি কথা বলতে হয় এবং বেচাকেনাও কমে যায়। কদিন আগে মাঘ মাসে হঠাৎ বৃষ্টি হওয়ায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পেঁয়াজের ক্ষেত ও মরিচ গাছের ফুল নষ্ট হয়ে গেছে। তাই বাজারে পেঁয়াজ ও কাঁচা মরিচের সরবরাহ কমেছে। চাহিদা থাকায় দামও বেড়েছে দ্বিগুণ। তবে বাজারে সরবরাহ বৃদ্ধি পেলে আবারও দাম কমে আসবে বলে আশা করছি।

বাজারের পেঁয়াজ বিক্রেতা শাকিল আহম্মেদ বলেন, বাজারে দেশী পেঁয়াজের সরবরাহ ভালো থাকায় দাম কম ছিল। কিন্তু কদিন আগে মাঘের হঠাৎ বৃষ্টির কারণে হিলির আশপাশের উপজেলাসহ পাবনা ও মেহেরপুরের বিভিন্ন অঞ্চলে পেঁয়াজের জমি নষ্ট হয়ে যাওয়ায় উৎপাদন ব্যাহত হয়েছে। এ কারণে মোকামগুলোতে সরবরাহে ঘাটতি দেখা দিয়েছে। চাহিদা থাকায় দাম বেড়েছে দ্বিগুণ। তবে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি অব্যাহত রয়েছে আশা করছি খুব তাড়াতাড়ি পেঁয়াজের দাম কমে আসবে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।