আজ:

২৬ অক্টোবর, ২০২১, ৫:৩৫ অপরাহ্ণ
More
    ৫:৩৫ অপরাহ্ণ

      দামুড়হুদায় পাট কাটা ও জাগ দেওয়ায় ব্যস্ত সময় পার করছে চাষীরা।

      প্রকাশিতঃ

      চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলায় পাট কাটা ও জাগ দেওয়া নিয়ে কৃষকেরা এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন। এ উপজেলায় এবার লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি জমিতে বেশি পাট চাষ হয়েছে। তবে এ বছর পর্যাপ্ত বৃষ্টির অভাবে নদীনালা, বিলখাল, পুকুরসহ জলাশয়গুলো পানিশূন্য থাকায় কৃষকেরা পানির অভাবে পাট জাগ দিতে পারছেন না। অনেক কৃষক পাট কেটে জমিতেই ফেলে রেখেছেন। অনেকই আবার পাটের জমিতে ধান লাগানোর জন্য অতি দ্রুত পাট কেটে জমি থেকে সরিয়ে অল্প পানিতে পাট জাগ দিতে বাধ্য হচ্ছেন। এখন পাট কাটার ভরা মরসুম হলেও কৃষকরা পানির অভাবে তা কাটতে দেরী করছে। এ অবস্থায় কৃষকেরা পড়েছেন মহাবিপাকে। এ বছর দামুড়হুদা উপজেলায় পাট চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ৬ হাজার ৯শত ৪৫ হেক্টর কিন্তু চাষ হয়েছে ১০ হাজার ৫শত ৩৫ হেক্টর জমিতে।
      দামুড়হুদায় পাট কাটা ও জাগ দেওয়ায় ব্যস্ত সময় পার করছে চাষীরা।
      দামুড়হুদায় পাট কাটা ও জাগ দেওয়ায় ব্যস্ত সময় পার করছে চাষীরা।
      কুড়ুলগাছি ইউনিয়নের হরিশ্চন্দ্রপুর গ্রামের কৃষক মোরশেদ আলী বলেন, চলতি বছর আমার ৩ বিঘা জমিতে পাটের আবাদ রয়েছে। পাটের ফলন ৪০ মণ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বর্তমানে পাটের বাজার ভালো থাকলেও পরবর্তীতে দাম নিইয়ে দুশ্চিন্তায় আছি। আমি পানির অভাবে পাট জাগ দেয়া নিয়ে চিন্তার মধ্যে আছি। এবার এখনো তেমন ভারী বৃষ্টিপাত না হওয়ায় এলাকায় নিচু জলাশয়ে পানি জমেনি। তাই বাধ্য হয়ে খালের অল্প পানিতে জাগ দিতে হবে। কুড়–লগাছির সীমান্তবর্তী গ্রাম বুইচিতলার মোশাররফ হেসেন বলেন, এ বছর বৃষ্টির পানির অভাবে পাট জাগ দিতে সমস্যা হচ্ছে। এ সময় আমন ধান রোপন ও পাট জাগ দেয়ার জন্য বৃষ্টির পানির খুবই প্রয়োজন। এ বছর ভরা বর্ষাকালেও তেমন বৃষ্টিপাত হয়নি। দামুড়হুদা উপজেলার পারকৃষ্ণ-পুর মদনা ইউনিয়নের সাড়াবাড়িয়া গ্রামের আনছার আলী মাষ্টার বলেন, এ বছর বৃষ্টিপাত তেমন একটা না হওয়ায় মাঠ-ঘাট প্রায় পানি শূন্য। এখন পাট কাটার উপযোগী হলেও বৃষ্টির পানির অভাবে পাট জাগ দেয়া নিয়ে খুবই চিন্তায় আছি। চলতি বছর প্রতি বিঘা জমিতে পাট উৎপাদনের জন্য ১২-১৪ হাজার টাকা খরচ হয়। বর্তমান বাজারে প্রতি মণ পাট দুই হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। খরচের হিসাবে বাজার দর কিছুটা ভাল হলেও পরে দাম নিয়ে শঙ্কায় আছি।
      দামুড়হুদায় পাট  জাগ দেওয়ায় ব্যস্ত চাষীরা।
      দামুড়হুদায় পাট জাগ দেওয়ায় ব্যস্ত চাষীরা।
      দামুড়হুদা উপজেলা কৃষি অফিসার মনিরুজামান বলেন, এ বছর দামুড়হুদা উপজেলায় লক্ষ্যমাত্রার অধিক জমিতে পাটের আবাদ হয়েছে। এখন পাট কাটার উপযুক্ত সময়। পাটের জমিতে ধানের চারা রোপন করার জন্য ইতোমধ্যেই অনেক চাষি পাট কাটা শুরু করেছেন। কৃষকেরা অপেক্ষায় আছেন, বৃষ্টি হলে তারা পুরোদমে পাট কাটা শুরু করবেন। তবে আমরা কৃষকদের পরামর্শ দিচ্ছি শেষ পর্যন্ত বৃষ্টিপাত না হলে রিবন রেটিং পদ্ধতিতে পাট পচালে অল্প খরচে পাট পচানো সম্ভব। এ পদ্ধতিতে পাটের মানও ভালো হয়।

      আজকের সর্বশেষ

      সব খবর

      এই বিভাগের আরো

      T20 ক্রিকেট লাইভ

      এই সপ্তাহের শীর্ষ দশ

      Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com