আজ-সোমবার | ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | শরৎকাল | ২০শে সফর, ১৪৪৩ হিজরি | সকাল ৭:৫২

  • হোম
  • দেশজুড়ে
Headline
ডাঃ নূপুরসহ তিনজনের বিরুদ্ধে কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগঃদুদকের মামলাতেতুল খাওয়ার লোভ দেখিয়ে শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টাঃ গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দঅফিসার ফোর্সদের দিক-নির্দেশনায় ওসি ফেরদৌসসিনেমা দেখার দুর্দান্ত অভিজ্ঞতায় স্যামসাং নিয়ে এলো নিও কিউএলইডি টিভিরোকেয়া বেগম ফিরে পেল তার সুখের সংসারগ্যালাক্সি এ১২ এর ৪/৬৪ জিবি সংস্করণ বাজারে আনলো স্যামসাংপাঁচবিবিতে কাঠ মিস্ত্রিকে হত্যার চেষ্টা:থানায় অভিযোগ দায়েরফরিদপুর সদরস্থ আরোগ্য সদন হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ডমেহেরপুর গাংনীতে প্রবাসীর আত্মহত্যা,পরিবারের অভিযোগ হত্যাআশুলিয়ায় কারখানার ডাইং মেশিনের গরম পানিতে দগ্ধ তিন শ্রমিকমানবতার কল্যাণে ফরিদপুরের বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কর্মসূচিমাদকমুক্ত হাকিমপুর উপজেলা গড়ার লক্ষে সব মহলের সহযোগিতা চাইলেন নবাগত ওসি খায়রুল বাসারঝিনাইদহে অবৈধপথে ভারত প্রবেশের সময় ১০ জন আটকঝিনাইদহে হোস্টেলের তালা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করায় ১১ ছাত্রের শাস্তিসিপিপি পাইকগাছা উপজেলা টিম লিডার নির্বাচন অনুষ্ঠিত

হরিনাকুন্ডু মকিমপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে নিয়োগ বানিজ্যের অভিযোগ, ভুক্তভোগীদের অবৈধ নিয়োগ বাতিলের দাবী

প্রকাশ: -

জাহিদুর রহমান তারিক, স্টাফ রিপোর্টার ঝিনাইদহঃ ঝিনাইদহের হরিনাকুন্ডু মকিমপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে নিয়োগ বানিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। এঘটনায় চাকুরি প্রত্যাশী আবেদনকারীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। জানা গেছে, মকিমপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে একজন নৈশ প্রহরী একজন দিনের প্রহরী ও একজন আয়া নিয়োগের জন্য পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়।

বিজ্ঞপ্তি দেখে তিনটি পদে ১২ জন আবেদন করে। লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার জন্য নিয়োগের একদিন আগে প্রার্থীদের হাতে প্রবেশপত্র দেওয়া হয়। তাদেরকে বলা হয় মঙ্গলবার সকাল ১০টায় পরীক্ষা শুরু হবে। হঠাৎ তারা পরীক্ষার কেন্দ্র করেন হরিনাকুন্ডু সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ে। সেখানে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় বেলা ১২টায়। অনুষ্ঠিত পরীক্ষা কেন্দ্রে উপস্থিত ছিলেন আবেদনকারীদের মধ্যে ৬জন। নিয়োগ বোর্ডে ডিজির প্রতিনিধি হিসাবে নিয়োগ করা হয় বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা ডেইজি খাতুনকে।

বোর্ডে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আঃ আজিজ, উপজেলা মাধ্যমিক অফিসার মোঃ ফজলুল হক ও সভাপতির নিজের ভাতিজা মকিমপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দেলোয়ার হোসেন। ভুক্তভোগী আবেদনকারীদের অভিযোগ প্রত্যেকের কাছ ৯লাখ টাকা করে নিয়ে কৌশলে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। নিয়োগের সময় স্থানীয় সাংবাদিক প্রশ্ন করলে ডিজির প্রতিনিধি জানান, এই নিয়োগের কাগজপত্রে ঝামেলা আছে। পরীক্ষা আমরা নাও নিতে পারি। ওই কথা শুনার পর সাংবাদিকরা চলে আসেন। পরে তাড়াহুড়া করে পাশের কম্পিউটারের দোকান থেকে কিছু কাগজ সংগ্রহ করে নিয়ে আসেন বিদ্যালয়ের সভাপতি। এরপর নিয়োগ প্রক্রিয়া গোপনে সম্পন্ন করা হয়। বিষয়টি তদন্ত করে অবৈধ নিয়োগ বাতিলের দাবী জানান ভুক্তভোগীরা।

এর আগেও ২০২০ সালের ডিসেম্বরে মকিমপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে কাম-কম্পিউটার পদে নিয়োগের জন্য পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়। সে সময়েও ১০ জন প্রার্থী আবেদন করেছিল। পরে সভাপতি ও তার ভাতিজা প্রধান শিক্ষক যোগসাজস করে কখন পরীক্ষা বা নিয়োগ দিয়েছে তা আবেদনকারীরা কেউ জানেনা বলে অভিযোগ করেন তারা। এঘটনায় আবেদনকারী প্রার্থীর স্বজন এলাকার ডাবলু নামে এক ভুক্তভোগী জানান, আমার ভাতিজা মকিমপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র ছিল। আমি আমার ভাতিজার জন্য কাম কম্পিউটারে আবেদন করি। এরপর ঝিনাইদহ পোস্ট অফিস থেকে ৫০০/= টাকা পোষ্টার অর্ডার করে সমস্ত কাগজ জমা দেই। পরে বিদ্যালয়ে সভাপতি আঃ আজিজ সাহেব আমাকে তার নিজের বাসায় ডেকে পাঠায়। আমি গ্রামের মাতব্বর লাল্টু কে সাথে নিয়ে সভাপতির বাসায় যায়। তখন সভাপতি আঃ আজিজ সাহেব আমাকে বলে কত টাকা দিতে পারবা! আমি বললাম কাকা আমরা তো গরীব মানুষ, আর আমার ভাতিজা এতিম ওর সমস্ত খরচ আমি নিজে বহন করে লেখা পড়া শিখিয়েছি। যদি টাকা দিতে হয় তাহলে আমার বাড়ির পাশে একটু জমি আছে বিক্রি করে টাকা দিতে হবে। তখন সভাপতি বলেন ১০ লাখ টাকা লাগবে। তিনি বলেন কোন কম টাকা নেওয়া যাবে না। পরবর্তীতে আমি ৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা দিতে রাজি হয়। কিচুক্ষন পর সে আমাকে বলেন তোমাকে পরে জানাবো। এরই কিছুদিন পর জানতে পারলাম কুলচারা গ্রামের সিমা খাতুন নামের এক মহিলাকে নিয়োগ দিয়েছে ১০ লাখ টাকার বিনিময়ে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন ছাত্র-ছাত্রী জানান, আমরা একসময় এই বিদ্যালয় থেকে লেখা পড়া শেষ করে বাহিরে পড়াশোনা করি। হঠাৎ একদিন প্রধান শিক্ষক দেলোয়ার হোসেন স্যার বলেন তোমরা কাম-কম্পিউটারে লোক নিয়োগ করা হবে তোমরা আবেদন করো। আমরা বললাম স্যার আমাদের কি চাকরি হবে। প্রধান শিক্ষক বলেন পোস্ট অর্ডারের টাকা আমি দিবো তোমারা শুধু আবেদন করো। তখন আমরা বুঝতে পারলাম সবই প্রতারণা। এব্যাপারে হরিনাকুন্ডু উপজেলার মকিমপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি ও চাঁদপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট আঃ আজিজ জানান, বিধি অনুযায়ী নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এখানে কারও কাছ থেকে কোন টাকা নেওয়া হয়নি। বিষয়টি সম্পর্কে প্রধান শিক্ষক দেলোয়ারের হোসেন জানান, টাকা নিয়েছে কি নেয়নি সেটি বলতে পারবো না। বিদ্যালয়ের সভাপতির নির্দেশনার বাইরে তো আমরা কিছুই করতে পারি না। এব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ ফজলুল হক বলেন, আমি একজন সরকারি প্রতিনিধি। স্বস্ব বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি আমাদের চিঠি দিয়ে জানান। সেসময় আমরা নিয়োগ বোর্ডে গিয়ে হাজির হয়। তখন আমরা ফাস্ট,সেকেন্ড ও থার্ড বাচাই করি। তাছাড়া সব বিষয়ে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ করে থাকে।

 

এই বিভাগের আরো

এই সপ্তাহের জনপ্রিয়

দামুড়হুদায় প্রবাসী শশুরের টাকা আত্মসাত, স্ত্রীকে সুকৌশলে ডিভোর্স দেওয়ার অভিযোগ : আদালতে মামলা, তদন্ত সিআইডির হাতে

চুয়াডাঙ্গার দামুড় হুদাই রকিবুল ইসলাম (২৭) ও তার মা রুপালী খাতুন (৪৫) পুর্ব পরিকল্পনামূলে বাবুল আক্তার নামে সৌদি এক প্রবাসীর কাছ থেকে বিভিন্ন ভাবে...

কুড়ুলগাছিতে জাল টাকা তৈরি চক্রের ৩ সদস্য আটক

দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা থানার কুড়ুলগাছি গ্রামে অভিযানে জাল টাকা তৈরি চক্রের সদস্য, চাঁদাবাজ চক্রের হোতা, মাদক ব্যবসায়ী, পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাইসহ এক ডজন মামলার ৩...

কার্পাসডাঙ্গার ফেরদৌস চোরকে গণ ধোলাই শেষে পুলিশে সোপর্দ

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের বাঘাডাঙ্গার নতুন পাড়ার পেশাদার চোর ফেরদৌসকে নাটুদাহের আটকবর মোড়ে বাইসাইকেল চুরি করার সময় হাতে আটক করার পর গণধোলাই...

দামুড়হুদা ইউএনওর বদলির আদেশঃ কাঁদছেন উপজেলার হাজার হাজার মানুষ

হাবিবুর রহমান হাবিব/ চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধিঃ চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলা থেকে একটি বটবৃক্ষের প্রস্থান হতে চলেছে। বটবৃক্ষটি আসলে একটি রক্ত মাংশে গড়া মানুষ! আর এই...

দামুড়হুদায় সুবুলপুরের মাদক ব্যবসাী জাহাঙ্গীর আটক

চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদা মডেল থানার পুলিশ মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে ১২ বোতল ভারতীয় ELCOREX COUGHSYRUP ও ১কেজি ৫০০ গ্রাম গাজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে করেছে। আটককৃত...
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com