আজ-সোমবার | ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | শরৎকাল | ২০শে সফর, ১৪৪৩ হিজরি | সকাল ৭:২৭

  • হোম
  • দেশজুড়ে
Headline
ডাঃ নূপুরসহ তিনজনের বিরুদ্ধে কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগঃদুদকের মামলাতেতুল খাওয়ার লোভ দেখিয়ে শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টাঃ গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দঅফিসার ফোর্সদের দিক-নির্দেশনায় ওসি ফেরদৌসসিনেমা দেখার দুর্দান্ত অভিজ্ঞতায় স্যামসাং নিয়ে এলো নিও কিউএলইডি টিভিরোকেয়া বেগম ফিরে পেল তার সুখের সংসারগ্যালাক্সি এ১২ এর ৪/৬৪ জিবি সংস্করণ বাজারে আনলো স্যামসাংপাঁচবিবিতে কাঠ মিস্ত্রিকে হত্যার চেষ্টা:থানায় অভিযোগ দায়েরফরিদপুর সদরস্থ আরোগ্য সদন হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ডমেহেরপুর গাংনীতে প্রবাসীর আত্মহত্যা,পরিবারের অভিযোগ হত্যাআশুলিয়ায় কারখানার ডাইং মেশিনের গরম পানিতে দগ্ধ তিন শ্রমিকমানবতার কল্যাণে ফরিদপুরের বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কর্মসূচিমাদকমুক্ত হাকিমপুর উপজেলা গড়ার লক্ষে সব মহলের সহযোগিতা চাইলেন নবাগত ওসি খায়রুল বাসারঝিনাইদহে অবৈধপথে ভারত প্রবেশের সময় ১০ জন আটকঝিনাইদহে হোস্টেলের তালা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করায় ১১ ছাত্রের শাস্তিসিপিপি পাইকগাছা উপজেলা টিম লিডার নির্বাচন অনুষ্ঠিত

গৃহবধূর গলাকাটা লাশ উদ্ধারঃ পরকীয়ায় জড়িত প্রেমিকের হত্যার দায় স্বীকার অতঃপর…………

প্রকাশ: -

মোঃ মাসুদুর রহমান : চুয়াডাঙ্গা সদর থানাধীন নতুন যাদবপুর গ্রামের গৃহবধূ জেসমিন আক্তার আয়নার গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে সদর থানা পুলিশ। গত ০৮/০৯/২০২১ রাত ৩.৩০ ঘটিকার সময় নিজ গৃহে আয়নার গলাকাটা এবং বিবস্ত্র মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। নির্মম হত্যাকান্ডের শিকার আয়নার স্বামী হাবিবুর রহমান একজন কুয়েত প্রবাসী শ্রমিক। তাদের সংসারে ১৮ বছরের একটি মেয়ে এবং ৮ বছরের একটি ছেলে রয়েছে। মেয়ের বিয়ে হয়ে যাওয়ায় সে শশুর বাড়িতে থাকে এবং একমাত্র ছেলে আজমির থাকে পাশের বাড়িতে তার আপন ফুফুর কাছে। ফলে নিহত আয়না একাই থাকতেন, তার নিজ বাসায়।

স্বামী প্রবাসে আর সন্তানরা দূরে থাকার কারণে আয়না বেগম নৃশংসভাবে খুন হন তার নিজের বাসায়। পাশের বাসায় থাকা আত্মীয়রা আয়নার ছটফটানির শব্দ শুনে পুলিশে খবর দেয়। তাৎক্ষনিকভাবে আমিসহ সদর থানা পুলিশ এবং ডিবি পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। আয়নার বাসার মেইন গেটসহ দরজা, জানালা বন্ধ থাকায় পাশের বাসার ছাঁদ বেয়ে মই যোগে আয়নার বাসার ছাঁদে পৌঁছে ছাঁদের দরজা খোলা পাওয়া যায়।

ঘরের ভেতর ডুকে পাওয়া যায় আয়না@ জেসমিনের বিবস্ত্র মৃতদেহ। গলার ওপর থেকে উদ্ধার করা হয় রক্তমাখা ছুরি, আয়নার সম্পূর্ণ বিছানা আর দেহ রক্তে ভেজা। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হয়- ধর্ষন করার পর আয়নাকে ধারালো ছুরি দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে একদল দূর্বৃত্ত। তারপর সুযোগ বুঝে ছাঁদের দরজা দিয়ে পালিয়ে যায়।

ঘটনাস্থল থেকে রক্তমাখা ছুরি জব্দ করা হয়। ভিকটিমের একটি ট্যাব আর তিনটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়। আশেপাশে সার্চ করে পাইপের গোড়ায় একজোড়া রক্তমাখা স্যান্ডেল পাওয়া যায়। ধারণা করা হয়- আসামী দুতলা ছাঁদ থেকে এই পাইপ বেয়ে নীচে নেমে এসে বাড়ির বাউন্ডারি ওয়াল ডিঙিয়ে পালিয়ে যায়।

ঘটনাস্থল থেকে আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ আলামত জব্দ করা হয়, আশেপাশের প্রথম সাড়াদানকারীদের বক্তব্য আর কিছু গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ঘটনাস্থল ও এর আশপাশ থেকে তিনজনকে আটক করা হয়। লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে লাশ পোস্ট মরটেম করার জন্য সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় ভয়ংকর তথ্য, চোখ কপালে উঠে যাওয়ার মত তথ্য দেন মৃত আয়না@ জেসমিনের সাবেক প্রেমিক মামুন (২৮)। মামুন জানায়, দীর্ঘ ১২ বছরের প্রেমের সম্পর্ক তাদের আর একবার তারা পালিয়ে বিয়েও করেছিল। কিন্তু পরে স্থানীয়রা বসে আপোষ মিমাংসা করে দেয়। আয়নার স্বামী প্রবাসে থাকায় প্রায় রাতেই মামুন চলে যেতো আয়নার ঘরে, আয়না একা একা বাসায় থাকায় মামুন পূর্ণ সুযোগ পেয়ে যায়।

এক পর্যায়ে মামুন আয়নাকে বিয়ের জন্য চাপ প্রয়োগ করে। টাকা পয়সা সবকিছু নিয়ে মামুনকে বিয়ে করার জন্য আয়নাকে মানসিক চাপ দিতে থাকে মামুন। আয়না তাকে ছেলে মেয়ের দোহাই দিয়ে কিছুদিন অপেক্ষা করতে বলে। কিন্তু হঠাৎ করেই আয়নার স্বামী হাবিবুরের দেশে ফেরত আসার খবরে সবকিছু এলোমেলো হয়ে যায় মামুনের, সব স্বপ্নের অপমৃত্যু ঘটে।

মামুন পরিকল্পনা করে আয়নাকে পৃথিবী থেকে সরিয়ে দিতে হবে। প্ল্যানের অংশ হিসেবে মামুন তার প্রতিবেশি নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া রাব্বিকে কাজে লাগায়। ৫ শত টাকার বিনিময়ে রাব্বি বিভিন্ন দোকান ঘুরে মায়ের কথা বলে ৬ টি ঘুমের ট্যাবলেট ক্রয় করে। তারপর মামুনের কথামতো ঘটনার রাতে এশার নামাজের পর ৫টি ঘুমের ট্যাবলেট দিয়ে লেবু – ট্যাংক শরবত তৈরি করে আয়নাকে বলে ” এটা জমজমের পানি দিয়ে তৈরি শরবত”। বিশ্বাস করে এক নিঃশ্বাসে সবটুকু শরবত খেয়ে নেয় আয়না। সেই যে ঘুম, ঘুম থেকে আর জাগা হয়নি ভিকটিম আয়নার।

অতপর মামুন ছাঁদের দরজা খোলা পেয়ে সরাসরি ঘরে ডুকে প্রথমে আয়নাকে ধর্ষন ; এবং ধর্ষণ শেষে ধারালো ছুরি দিয়ে গলা কেটে হত্যা। অকপটে স্বীকার করে প্রেমিক মামুন। ঘটনাস্থলে ফেলে যাওয়া জুতো জোড়াও মামুনের। মামুনের ঘরে থাকা ২ টি মোবাইল এবং তার রক্তমাখা লুঙ্গি জব্দ করা হয় তার ঘরে লুকানো অবস্থা থেকে।

আর গ্রেফতারকৃত রাব্বির স্বীকারোক্তি মতে এবং তার দেখানো মতে তাদের বাড়ির চিলেকোঠা হতে ঘুমের ট্যাবলেটের খোসা উদ্ধার করা হয় ; জব্দ করা হয় যে গ্লাসে করে আয়নাকে শরবত খাওয়ানো হয়েছিল, সেই পানির গ্লাসও। আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে -আয়না হত্যা মামলার প্রধান আসামী মামুন এবং সহযোগী রাব্বিকে।

একটি লোমহর্ষক এবং ঘৃন্যতম হত্যাকান্ড সংঘটনের ২৪ ঘন্টারও কম সময়ে মামলার দুজন আসামী গ্রেফতার এবং এর সাথে সংশ্লিষ্ট সকল আলামত জব্দ করা সম্ভব হয়েছে একদল চৌকষ আর প্রতিশ্রুতিশীল অফিসারদের কারণে। ধন্যবাদ এর সাথে সংশ্লিষ্ট সকল অফিসারদের।

এই বিভাগের আরো

এই সপ্তাহের জনপ্রিয়

দামুড়হুদায় প্রবাসী শশুরের টাকা আত্মসাত, স্ত্রীকে সুকৌশলে ডিভোর্স দেওয়ার অভিযোগ : আদালতে মামলা, তদন্ত সিআইডির হাতে

চুয়াডাঙ্গার দামুড় হুদাই রকিবুল ইসলাম (২৭) ও তার মা রুপালী খাতুন (৪৫) পুর্ব পরিকল্পনামূলে বাবুল আক্তার নামে সৌদি এক প্রবাসীর কাছ থেকে বিভিন্ন ভাবে...

কুড়ুলগাছিতে জাল টাকা তৈরি চক্রের ৩ সদস্য আটক

দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা থানার কুড়ুলগাছি গ্রামে অভিযানে জাল টাকা তৈরি চক্রের সদস্য, চাঁদাবাজ চক্রের হোতা, মাদক ব্যবসায়ী, পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাইসহ এক ডজন মামলার ৩...

কার্পাসডাঙ্গার ফেরদৌস চোরকে গণ ধোলাই শেষে পুলিশে সোপর্দ

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের বাঘাডাঙ্গার নতুন পাড়ার পেশাদার চোর ফেরদৌসকে নাটুদাহের আটকবর মোড়ে বাইসাইকেল চুরি করার সময় হাতে আটক করার পর গণধোলাই...

দামুড়হুদা ইউএনওর বদলির আদেশঃ কাঁদছেন উপজেলার হাজার হাজার মানুষ

হাবিবুর রহমান হাবিব/ চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধিঃ চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলা থেকে একটি বটবৃক্ষের প্রস্থান হতে চলেছে। বটবৃক্ষটি আসলে একটি রক্ত মাংশে গড়া মানুষ! আর এই...

দামুড়হুদায় সুবুলপুরের মাদক ব্যবসাী জাহাঙ্গীর আটক

চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদা মডেল থানার পুলিশ মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে ১২ বোতল ভারতীয় ELCOREX COUGHSYRUP ও ১কেজি ৫০০ গ্রাম গাজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে করেছে। আটককৃত...
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com