আজ-সোমবার | ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | শরৎকাল | ১৩ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি | রাত ৮:২২

  • হোম
  • দেশজুড়ে
Headline
এসএমই ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ৪% সুদে প্রণোদনা ঋণ দেবে লংকাবাংলা ফাইন্যান্সশার্শায় অর্থাভাবে চিকিৎসা করাতে পারছেন না মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমীনদেশে ফিরল বিভিন্ন মেয়াদে জেল খেটে পাচার হওয়া ৩৬ জন বাংলাদেশীমধুখালীতে ৫টি শিশু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধহিলি সীমান্তে ভারতে অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগে ৪ জন আটকফরিদপুরে মুজিব বর্ষ পৌর গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০২১,১০ নং ওয়ার্ডের জয়লাভ।ক্রেতাদের দুর্দান্ত অভিজ্ঞতা দিতে পুনরায় দারাজের ডি-মার্ট সেবা চালুকৃষি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের পরামর্শ গ্রহণ করে আউশ জমিতে বালাইনাশক প্রয়োগ’র পরামর্শ: শায়লা শারমিনক্রেতাদের স্বাচ্ছন্দ্যে গ্যালাক্সি জেড ফোল্ড৩ ফাইভজি ও জেড ফ্লিপ৩ ফাইভজি’র হ্যান্ডস-অন এক্সপেরিয়েন্স সুবিধা নিয়ে এলো স্যামসাংমুজিবনগর পুলিশের ঝটিকা অভিযান ডজন খানেক ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী গ্রেপ্তারসোনাইমুড়ি অম্বরনগর ইউপি চেয়ারম্যানের নেতৃত্বেবহিরাগত সন্ত্রাসী দিয়ে এলাকায় তান্ডবঘোড়াঘাটে ইউপি চেয়ারম্যানসহ ৬ জন জুয়ারু আটককরোনা মহামারি দুর্যোগ মোকাবেলা এক যুদ্ধার নাম আহসান হাবিবস্ত্রীকে ছুরিকাঘাতের পর রক্তমাখা অবস্থায় থানায় গেলেন স্বামীবাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠানে ভূষিত কুড়ুুুলগাছি আদর্শ কৃষক সমবায় সমিতি
হোম অর্থনীতি রেকর্ড ভেঙে বেড়েছে পাটের দাম, কৃষকের মুখে হাসি

রেকর্ড ভেঙে বেড়েছে পাটের দাম, কৃষকের মুখে হাসি

প্রকাশ: -

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

সোনালী আঁশ পাট। দেশের অন্যতম অর্থকারী ফসল হিসাবেও পরিচিত। কিন্তু গত কয়েক বছর ধরে পাটের ন্যায্য দাম না পাওয়ায় কৃষকরা পাট চাষ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিলেন। বিগত বছরগুলোতে আবহাওয়ার প্রতিকূল পরিবেশ আর উৎপাদন ছাড়া বাজার মূল্য কম থাকলেও এ বছর তা ভিন্ন। তাই এই পরিবেশ বিরাজ করলে দেশের এই প্রধান রফতানি শিল্প পাট ও পাটজাত দ্রব্য বিশ্ব বাজারে জোগান বাড়াতে পারে মনে করেন কৃষকরা।

বিগত বছরগুলোতে শ্রমিক খরচ আর দোকান মালিকের টাকা পরিশোধ করতে বাধ্য হয়ে কম টাকায় স্থানীয় ব্যবসায়ীদের কাছে বিক্রয় করতে বাধ্য হয় কৃষকরা। আর এতে এক দিতে লাভবান হন মধ্যসত্বভোগী ব্যবসায়ীরা। অন্যদিকে কৃষকরা সঠিক দাম না পেয়ে চাষ থেকে মুখ ফিরিয়ে নেওয়ার চিন্তা করেন। তবে এ বছর সব রেকর্ড ভেঙ্গে দিয়েছে পাট। আবারও পাটের সুদিন ফিরে আসছে। পলিথিনের ব্যবহার কমিয়ে পাট ও পাটজাত দ্রব্যের ব্যবহার বাড়াতে ভোক্তাদের আগ্রহী করা হচ্ছে।

পাটের দামে হঠাৎ উত্থান–পতন | প্রথম আলো
পাটের দাম পেয়ে কৃষকের মুখে হাসি

অপরদিকে পাট চাষে আগ্রহী করতে চাষিদেরকে সরকার থেকে প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে। এবছর থেকে আবারও পাটের ন্যায্য দাম পাচ্ছেন চাষিরা। মাঝখানে পাটের আবাদ কমলেও আবারও পাট চাষে আগ্রহ বেড়েছে চাষিদের। পাটজাত দ্রব্যের ব্যবহার বাড়ানো সম্ভব হলে পাটের আবাদ আরো বৃদ্ধি পাবে।

সুন্দরবনের কোল ঘেঁষা সাতক্ষীরা জেলা পাট চাষের জন্য বেশ উপযুক্ত। এ বছর জেলার সব উপজেলায় পাট চাষ হয়েছে। ফলন ও উৎপাদন ভালো হওয়ায় এবং দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় লাভবান হচ্ছেন কৃষকরা। আবহাওয়া ও প্রাকৃতিক দূর্যোগ কম হওয়ায় সঠিক সময়ে পাট বীজ বপন ও উৎপাদন করতে পেরেছেন কৃষকরা। তাছাড়া পরিমিত বৃষ্টিতে পাট জাগ দেওয়া এবং আঁশ ছাড়াতে সমস্যা হয়নি তাদের।

যশোরে পাটের দাম ভালো পাওয়ায় খুশি কৃষকরা | Adhunik Krishi Khamar
জাগ থেকে পাট ধোঁয়ায় ব্যস্ত চাষী

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর থেকে জানা গেছে, পাট উৎপাদন মৌসুম (বপন থেকে পাট কাটা) হচ্ছে ফাল্গুনের শেষ থেকে আষাঢ়ের শেষ পর্যন্ত। মোট চার ধরনের পাট রয়েছে: দেশী পাট, তোষা পাট, কেনাফ ও মেস্তা পাট। সাধারণত উঁচু ও মধ্যম উঁচু জমি, যেখানে বৃষ্টির পানি বেশি সময় দাঁড়ায় না এবং দো—আঁশ মাটি পাট চাষের জন্য বেশি উপযোগী। বৃষ্টিপাতের পরপরই আড়াআড়ি ৫—৭ টি চাষ দিয়ে জমি তৈরি করতে হবে। ঢেলা গুড়ো করে জমি আগাছামুক্ত করতে হয়। ভালোভাবে প্রস্তুতকৃত জমিতে বপনের ২—৩ সপ্তাহ আগে হেক্টরপ্রতি ৩.৫ টন গোবর সার মিশিয়ে দিতে হয়। বপনের দিন ১৫ কেজি ইউরিয়া, ১৭ কেজি টিএসপি ও ২২ কেজি এমওপি সার জমিতে প্রয়োগ করতে হয়।

বীজ বপনের ৬—৭ সপ্তাহ পর ক্ষেতের আগাছা পরিষ্কার ও চারা পাতলা করে হেক্টরপ্রতি ১০০ কেজি ইউরিয়া সার জমিতে পুনঃরায় ছিটিয়ে দিতে হয়।এছাড়া সময়মত পাটবীজ বপন করা উচিত। সাধারণত ছিটিয়েই পাটবীজ বপন করা হয়। তবে সারিতে বপন করলে পাটের ফলন বেশি হয়। সারিতে বুনলে লাইন থেকে লাইনের দূরত্ব ৩০ সেমি বা এক ফুট এবং গাছ থেকে গাছের দূরত্ব ৭—১০ সেমি বা ৩—৪ ইঞ্চি হতে হবে। বীজ বপনের ১৫—২১ দিনের মধ্যে ১ম নিড়ানী এবং ৩৫—৪২ দিনের মধ্যে ২য় নিড়ানী দিয়ে আগাছা দমন ও চারা পাতলা করতে হবে।

রেকর্ড ছাড়িয়েছে পাটের দাম! খুশি কৃষক ও ব্যবসায়ী - Rajshahi News24 |  রাজশাহী নিউজ 24
পাটের দাম পেয়ে পাটের বস্তা মাথায় চাষী

বিছাপোকা পাটের কচি ও বয়স্ক পাতা খেয়ে ফেলে। ঘোড়া পোকা ডগার দিকের কচি পাতা খেয়ে ফেলে। উড়চুঙ্গাঁ জমিতে গর্ত করে চারা গাছের গোড়া কেটে দেয়। চেলে পোকা কান্ডে ছিদ্র করে ফলে আঁশ ছিঁড়ে যায়। সাদা ও লাল মাকড় ডগার পাতার রস চুষে খায়, ফলে পাতা কুঁকড়ে যায়। তাই আক্রান্তের লক্ষণ দেখামাত্র প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে। অথবা ইউনিয়ন বা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার পরামর্শ নিতে হবে।

কৃষি অফিস সূত্রে আরও জানা যায়, পূর্বের ন্যায় ডোবা—নালা না থাকায় কৃষক পাট পচাতে সমস্যার মুখে পড়ে। তাছাড়া মিষ্টি পানি ছাড়া পাটের আঁশ ছাড়ানো সম্ভব হয় না। সে কারণে লক্ষমাত্রা কমেছে। তবে উৎপাদন যথেষ্ট রয়েছে। এ বছর দেবহাটার লক্ষমাত্রা ছিল ৮০ হেক্টর। কিন্তু সেখানে ৫০ হেক্টর জমিতে পাট উৎপাদিত হয়েছে। যা হেক্টর প্রতি ১১ বেল পাট উৎপাদিত হয়েছে। উপজেলার সব জমির পাট ইতোমধ্যে কাটা ও জাঁক দেওয়া হয়েছে বলেও জানায় কৃষি বিভাগ। অনেকে পাটের আঁশ বিক্রি করেতে শুরু করেছে। পাটের আঁশ ২৬—২৮শ টাকা মন দরে বিক্রি হচ্ছে।

পাটের মণ ৪০০০ টাকা, লাভবান হচ্ছেন ফড়িয়া-ব্যবসায়ীরা
গোডাউনে পাটের বস্তার সারি

পাট চাষি রব্বানী আলী দফাদার জানান, এবছর ২ বিঘা জমিতে পাট চাষ করেছি। ফলন খুবই ভালো হয়েছে। পাট বিক্রি শেষ। বিগত বছরে যেখানে পাটের আঁশ ১৫’শ টাকা মণ বিক্রি হত, সেখানে এবার ২৬৫০ থেকে শুরু করে সাড়ে ২৭’শ টাকা পর্যন্ত বিক্রি করেছি। পাট চাষ করে বিগত দশ বছরেও এমন দাম পাইনি। সরকার এবার পাটের দাম বৃদ্ধি করায় আমরা অনেক খুশি। আশা এমন দাম পেলে আগামীতে আরো পাটের আবাদ বাড়বে।

পাট চাষি নিপু দাশ জানান, পাট বীজ বপন থেকে কাটা ও বিক্রি পর্যন্ত কৃষি বিভাগ আমাদের পরামর্শ দিয়েছেন। এমনকি সরকারি বীজ ও সার পেয়ে আমরা খুব সহজে পাট চাষ করতে পেরেছি। এবছর পাটের দাম খুবই ভালো। পাটের পাশাপাশি পাট খড়ি ৬০/৭০ টাকা দরে আটি বিক্রি হচ্ছে। এমন দাম পেয়ে আমরা খুবই খুশি।

ফরিদপুরে পাটের দাম নিয়ে হতাশ চাষিরা

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শরীফ মোহাম্মদ তিতুমীর জানান, পাট চাষের জন্য উষ্ণ জলবায়ু ও প্রচুর বৃষ্টিপাত দরকার হয়। ফাল্গুন ও চৈত্র মাস পাট বোনার উপযুক্ত সময়। এসময় কৃষকেরা পাট চাষে ব্যস্ত হয়ে পরে। শ্রাবণ—ভাদ্র মাসে পাট চাষিরা পাটগাছ কেটে ছোট ছোট করে আঁটি বাঁধে রাখে। আঁটিগুলো কিছুদিন পানিতে ভিজিয়ে রাখা হয় যাকে পাট জাগ দেয়া বলে। পাটের আঁশ পঁচে নরম হলে তা ছাড়ানো হয়। এরপর আঁশ ধুয়ে রোদে শুকানো হয়। সেই আঁশকেই বলা হয় পাট। পাটের ভেতরের কাঠিকে পাটকাঠি বলা হয়। পাট থেকে রশি, সুতা, বস্তা, কাপড়, কার্পেট ইত্যাদি তৈরি করা হয়। পাটকাঠি জ্বালানি হিসেবে এবং বেড়া ও কাগজ তৈরির কাজে ব্যবহার করা হয়। প্লাস্টিকের বস্তা ও পলিথিন ব্যাগ ব্যাবহারের পরিবর্তে পাটের তৈরী মোড়ক ব্যবহারে সরকার জোর দিয়েছেন। পাটের বহুমুখী ব্যবহারের মাধ্যমে বহুগুণ এগিয়ে দেশের অর্থনীতি সমৃদ্ধ করবে পাট শিল্প।

এই বিভাগের আরো

এই সপ্তাহের জনপ্রিয়

দামুড়হুদায় প্রবাসী শশুরের টাকা আত্মসাত, স্ত্রীকে সুকৌশলে ডিভোর্স দেওয়ার অভিযোগ : আদালতে মামলা, তদন্ত সিআইডির হাতে

চুয়াডাঙ্গার দামুড় হুদাই রকিবুল ইসলাম (২৭) ও তার মা রুপালী খাতুন (৪৫) পুর্ব পরিকল্পনামূলে বাবুল আক্তার নামে সৌদি এক প্রবাসীর কাছ থেকে বিভিন্ন ভাবে...

কুড়ুলগাছিতে জাল টাকা তৈরি চক্রের ৩ সদস্য আটক

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা থানার কুড়ুলগাছি গ্রামে অভিযানে জাল টাকা তৈরি চক্রের সদস্য, চাঁদাবাজ চক্রের হোতা, মাদক ব্যবসায়ী, পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাইসহ এক ডজন...

কার্পাসডাঙ্গার ফেরদৌস চোরকে গণ ধোলাই শেষে পুলিশে সোপর্দ

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের বাঘাডাঙ্গার নতুন পাড়ার পেশাদার চোর ফেরদৌসকে নাটুদাহের আটকবর মোড়ে বাইসাইকেল চুরি করার সময় হাতে আটক করার পর গণধোলাই...

দামুড়হুদা ইউএনওর বদলির আদেশঃ কাঁদছেন উপজেলার হাজার হাজার মানুষ

হাবিবুর রহমান হাবিব/ চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধিঃ চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলা থেকে একটি বটবৃক্ষের প্রস্থান হতে চলেছে। বটবৃক্ষটি আসলে একটি রক্ত মাংশে গড়া মানুষ! আর এই...

দামুড়হুদায় সুবুলপুরের মাদক ব্যবসাী জাহাঙ্গীর আটক

মো: মাহবুবুর রহমান মনিঃ চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদা মডেল থানার পুলিশ মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে ১২ বোতল ভারতীয় ELCOREX COUGHSYRUP ও ১কেজি ৫০০ গ্রাম গাজাসহ এক...
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com