আজ:

২১ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০০ অপরাহ্ণ
More
    ১২:০০ অপরাহ্ণ

      চুয়াডাঙ্গায় ব্যাবসায়ীকে প্রতারনা করে ফাঁসানোর অভিযোগ

      প্রকাশিতঃ

      চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি

      চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গার কুলপালা গ্রামের পাট ব্যাবসায়ী মকলেসুর রহমানের বিরুদ্ধে অন্যজনের দেওয়া একটি ব্লাঙ্ক চেক নিজের নামে লিখে, এক ব্যাবসায়ীকে ২০ লক্ষ টাকার মামলা দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগ উঠেছে ।

      - Advertisement -

      অভিযোগ সুত্রে জানাগেছে,আলমডাঙ্গা উপজেলার চিৎলা ইউনিয়নের কুলপালা গ্রামের সুন্নত মন্ডলের ছেলে মাসিদুল হক ভূষি মালের ব্যাবসা করতো মেহেরপুরের বামুন্দী বাজারের লাল্টু মিয়ার সঙ্গে। ব্যাবসার এক পর্যায়ে লাল্টু মিয়া মাসিদুলের কাছে ৫ লক্ষ ৮৩ হাজার টাকা পাওনা করে। সে সময় ব্যাবসা সুত্রে সম্পর্ক ভাল থাকায় মাসিদুল সরল বিশ্বাসে ব্যাংকের চেক বইয়ের একটি পাতায় টাকার অংক এবং গ্রহীতার নাম না লিখে ব্যবসায়ী লাল্টু মিয়াকে দেয় এবং বলে টাকা পরিশোধ হওয়ার পরই চেকটি ফেরৎ দিয়েন।


      পরবর্তীতে ব্যাবসা মন্দা যাওয়ায় মাসিদুল পাওনাদারের টাকা পরিশোধের লক্ষে সৌদি আরবে পাড়ি জমায়। সেখানে যাবার কিছু দিন পর মাসিদুল জানতে পারে তার নামে প্রতারনা করে ২০ লক্ষ টাকার চেক ডিজওনার মামলা করেছে তারই গ্রামের মৃত আব্দুল মতিন শাহ’ র ছেলে পাট ব্যাবসায়ী মোখলেচুর রহমান। যার সাথে মাসিদুলের ব্যাবসায়ী কোন লেনদেন বা চেক দেয়ার কোন সম্পর্ক ছিলনা ।


      মাসিদুল হক আরো অভিযোগ করে বলেন আমি সৌদি আরবে থাকায় আমার গ্রামের ছেলে মোখলেচুর রহমান মোবাইল ফোনে আমার কাছে ১০ লক্ষ টাকা অথবা আমার বাড়ির জমি তার নামে লিখে দিলে বিষয়টি মিটিয়ে দেবে এবং চেক ফেরৎ দিয়ে দেয়ার ব্যাবস্থা করবে বলেন আমাকে জানায়। টাকা বা জমি কোনটিই মোখলেচুরকে দিতে না চাওয়ায় আমি যার সাথে ব্যাবসা করতাম বামুন্দীর লাল্টু মিয়াকে ফুঁসলিয়ে তাকে দেওয়া ব্লাঙ্ক চেকটি হাতিয়ে নিয়ে তাতে ২০ লক্ষ টাকা লিখে কোর্টে মামলা করেছে যা এক প্রকার প্রতারনা। বিষয়টি সঠিক ভাবে তদন্ত করার জন্যও তিনি প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সূ-দৃষ্টি কামনা করেছেন।


      এদিকে মাসিদুল হক প্রাবাসে থাকার সুযোগে অন্যের দেওয়া চেক নিজের নামে লিখে মোটা অংকের টাকা বসিয়ে কোর্টে প্রতারনা করে মামলা করায় এলাকার ব্যাবসায়ীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছে এবং গ্রামের ছেলে হিসেবে মাসিদুলের নামে এধরনের প্রতারণা করে ২০ লাখ টাকার মামলা দেয়ায় কুলপালা গ্রামের ব্যাবসায়ী সালাউদ্দিন ওরফে চাষী স্বপন বলেন, মেহেরপুরের বামুন্দী বাজারের ব্যাবসায়ী লাল্টুর সাথে মাসিদুল হকের ব্যাবসায়ী লেনদেন ছিল, সেই সুত্রে ৫ লক্ষ ৮৩ হাজার টাকা লাল্টু মিয়া মাসিদুলের কাছে পেত,ঐ সময় মাসিদুল হক টাকা ফেরৎ দিতে না পারায় কুলপালা গ্রামে বসে কয়েকজন ব্যবসায়ীর উপস্থিতিতে ১ বছরের মধ্যে টাকা ফেরত দেবে জানিয়ে লাল্টু মিয়াকে একটি ব্লাঙ্ক চেক দেন। মাসিদুল হক বিদেশ যাওয়ার পর লাল্টু মিয়ার দুর সম্পর্কিত আত্মীয় কুলপালা গ্রামের মৃত্যু- আব্দুল মতিন শাহ’ র ছেলে মোখলেচুর রহমান, লাল্টু মিয়ার কাছ থেকে ব্লাঙ্ক চেক এনে মাসিদুল হকের পরিবারকে টাকা ফেতর দিতে চাপ দিতে থাকে এবং গ্রামের মাতবরদের টাকাটি আদায় করে দেওয়ার জন্য বলেন, টাকা আদায় করতে না পেরে মোখলেচুর রহমান ব্লাঙ্ক চেকটি নিজের নামে লিখে ২০ লক্ষ টাকা বসিয়ে প্রতারণা করে মাসিদুল হকের নামে প্রতারনা মামলা করেছে যা এলাকার সাধারন মানুষ থেকে ব্যবসায়ীরাও জানেন। একই কথা বলেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শুকুর আলী, আনোয়ার হোসেন ও দবির উদ্দিন ।


      এবিষয়ে বামুন্দী বাজারের ব্যাবসায়ী লাল্টুর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন কুলপালা গ্রামের আমার ব্যাবসায়ী পার্টনার মাসিদুল হকের কাছে আমি ব্যবসায়ী হিসাব অনুযায়ী ৬লক্ষ ৩৩ হাজার টাকা পাব। সে আমার সাথে প্রতারনা করে আমার টাকা ফেরৎ না দিয়ে সৌদি আরবে যাওয়ার আগে আমাকে একটি ব্লাঙ্ক চেক দিয়ে গোপনে বিদেশ চলে যায় তার পর থেকে সে আমার সাথে আর কোন যোগাযোগ না করায়, কুলপালা গ্রামের আমাদের জামাই ও আমার ব্যাবসায়ী পার্টনার মাসিদুল হকের বন্ধু, টাকা আদায় করার দায়িত্ব নেয়। পরে আমাদের জামাই মোখলেচুর রহমান আমার কাছে মাসিদুল হকের দেয়া ব্লাঙ্ক চেক পেয়ে টাকা আদায় করার লক্ষে নিজে বাদি হয়ে কোর্টে মামলা করেছে।


      এ মামলার বিষয়ে মোখলেচুর রহমান বলেন আমার খালু শ্বশুর আমার মাধ্যমেই লেনদেন শুরু করে মাসিদুল হকের সাথে।সে ৬ লক্ষ ৩৩ হাজার টাকা ফেরৎ না দিয়ে প্রতারণা করে আমার খালু শ্বশুর লাল্টু মিয়াকে একটি ব্লাঙ্ক চেক দিয়ে বিদেশ চলে যায়। দির্ঘদিন তার কাছ থেকে টাকা আদায় করতে না পেয়ে তার নামে কোর্টে মামলা করা হয়েছে। এখন আর ৬ লক্ষ ৩৩ হাজার টাকা হিসাব আসবে না চেকে যে টাকার অঙ্ক দিয়ে মামলা করা হয়েছে সেই টাকারই হিসাব হবে।

      এই বিভাগের আরো

      LEAVE A REPLY

      Please enter your comment!
      Please enter your name here

      এই সপ্তাহের শীর্ষ দশ

      Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com