আজ:

২৬ অক্টোবর, ২০২১, ৬:২৪ অপরাহ্ণ
More
    ৬:২৪ অপরাহ্ণ

      স্বামী পছন্দ না হওয়ায় ঘুমের বড়ি খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা

      প্রকাশিতঃ

      নিজস্ব প্রতিবেদক

      চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার খাসকররা গ্রামে ১৫ বছরের এক কিশোরীর সঙ্গে ৪০ বছরের এক যুবকের জোরপূর্বক বিয়ের অভিযোগ উঠেছে। স্বামী পছন্দ না হওয়ায় অভিমানে ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন ওই নববধূ। বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বিকেলে এ ঘটনা ঘটে।

      - Advertisement -

      ওই স্কুলছাত্রীর নাম তামান্না খাতুন (১৫)। সে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার মোমিনপুর ইউনিয়নের আমিরপুর গ্রামের মসজিদপাড়ার আবু সায়েম শাহীনের মেয়ে ও আলমডাঙ্গা উপজেলার খাসকররা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী। তামান্নাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

      তামান্না খাতুনের বাবা আবু সায়েম শাহীন বলেন, আমার মেয়ের বয়স যখন আড়াই মাস তখনই আমার আর আমার স্ত্রী স্বপ্না খাতুনের সম্পর্কের অবনতি ঘটে। সেই সূত্র ধরে আমাদের মধ্যে বিবাহবিচ্ছেদ ঘটে। এরপর থেকে মেয়ে তার নানার বাড়িতে থাকত। বিবাহবিচ্ছেদের ঘটনায় আদালতে মামলা হলে রায়ে মেয়ের জন্য প্রতি মাসে এক হাজার টাকা ভরপোষণ দিতে হতো।

      তিনি অভিযোগ করে আরও বলেন, মেয়ের সঙ্গে নানা বাড়ির লোকজন আমাকে দেখা করতে দিত না। ২০ দিন আগে আলমডাঙ্গা উপজেলার খাসকররা ইউনিয়নের কায়েতপাড়া গ্রামের জামাত আলীর ছেলে লাভলুর (৪০) সঙ্গে তামান্নার জোর করে বিয়ে দেয় নানা ঠান্ডু জোয়ার্দ্দার।

      তামান্নার সম্মতি ছাড়া বিয়ে দেওয়ায় বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে সে ২০টা ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। বিষয়টি ঠিক পেয়ে পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে যায়। সেখানে তার পাকস্থলি ওয়াশ করে হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়েছে।

      চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক বলেন, পরিবারের সদস্যদের কাছ থেকে জেনেছি, তামান্না খাতুন ২০টি ঘুমের ওষুধ খেয়েছে। তার পাকস্থলি ওয়াশ করা হয়েছে। তবে তামান্না খাতুনের অবস্থা শঙ্কামুক্ত। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ভর্তি করা হয়েছে।

      আজকের সর্বশেষ

      সব খবর

      এই বিভাগের আরো

      T20 ক্রিকেট লাইভ

      এই সপ্তাহের শীর্ষ দশ

      Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com