আজ:

২১ অক্টোবর, ২০২১, ১১:৫১ পূর্বাহ্ণ
More
    ১১:৫১ পূর্বাহ্ণ

      কার্পাসডাঙ্গায় ছাগলে ক্ষেত খাওয়াকে কেন্দ্র করে মারামারি: মহিলাসহ মারাত্তক জখম ৩

      প্রকাশিতঃ

      মাহবুবুর রহমান মনি

      দামুড়হুদা উপজেলার কোমরপুর গ্রামে ছাগলে ঘাস খাওয়াকে কেন্দ্র করে হাতুড়ি পেটা করে মহিলাসহ উভয় পক্ষের ৩’জন মারাত্তক আহত হয়েছে। প্রতিবেশীরা তাদের উদ্ধার করে দামুড়হুদা স্বাস্হ্য কম্প্লেক্সে করে।

      মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে চারটার দিকে কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের কোমরপুর গ্রামের মাঠপাড়ার ইসলাম আলীর বাড়ীর পার্শে একটি জমিতে একই গ্রামের মৃত ইক্তার আলীর ছেলে ইয়ানবী ঘাস লাগায়।ঘাস লাগানো জমিতে ছাগল লেগে ঘাস খেলে ইয়নবীসহ ছেলে ওমর ফারুক ও ইসলাম আলীর ছেলে কালু কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। কালু এবং তার মা আকলিমা খাতুন (৫৫)কে বেধড়ক পিটিয়ে মারাত্তক আহত হয়েছে। আকলিমা খাতুনের মাথায় ১৬টি ও কালুর মাথায় ৬টি সেলায় পড়েছে।

      - Advertisement -

      এবিষয়ে ওমর ফারুকের সাথে কথা বললে তিনি জানান কালুদের বাড়ীর নিকট আমাদের ৩বিঘা জমি আছে ঐ জমিতে ধান ও ঘাস লাগানো আছে প্রত্যহদিন ছাগল ছেড়ে দিয়ে ধান ও ঘাস খায় বলতে গেলে কালু আমার মাথায় হাসুয়া দিয়ে কোপ মেরে মারাত্তক আহত করে। আমার মাথায় ১০টি সেলায় দিয়েছে। কালুর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন ফারুকদের ঘাসে আমার ১টি ছাগল গিয়েছিলো ফারুকের সাথে আমার কথা হচ্ছিলো কোন কিছু বুঝে উঠার আগে আমার মাথায় রড দিয়ে মেরে দেয়। আমি আহত হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে আমার মার মা এগিয়ে আসলে তিনাকেও হাসুয়া দিয়ে মাথায় কোপ মেরে আহত করে।

      প্রত্যেকদর্শিরা জানান ইয়ানবী ও তার ছেলে ওমর ফারুক কালুর সাথে কথা কাটাকাটি করতে থাকলে ইয়ানবী পেরেক তোলা হাতুড়ি দিয়ে কালুর মাথায় সাজরো আঘাত করে। কালুর মা এগিয়ে আসলে তাকে রড দিয়ে মাথায় আঘাত করে। দামুড়হুদা মডেল ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ঘটনাটির বিষয়ে সত্যত্যা নিচ্চিত করে বলেন উভয় পক্ষ অভিযোগ দায়ের করেছে তদন্ত সাপেক্ষে আইনুযায়ী ব্যবস্হা নেয়া হবে।

      এই বিভাগের আরো

      LEAVE A REPLY

      Please enter your comment!
      Please enter your name here

      এই সপ্তাহের শীর্ষ দশ

      Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com